হিন্দু যুবককে ধরে জোর পুর্বক লিঙ্গ কর্তন করে সুন্নাতে খতনা! মুসলিম বানানোরও চেষ্টা!

বরিশাল জেলার উজিরপুর উপজেলার হারতা ইউনিয়ন কুচিয়ার পাড় উচ্চ গ্রাম নিবাসী নির্মল দাস এর ছেলে অভিজিৎ দাস (২০)’কে কাজ দেওয়ার কথা বলে ঢাকা নিয়ে একই গ্রামের কালাম হাওলাদার (৪০), পিতাঃ মালেক হাওলাদার, ধর্ম ত্যাগ করে ধর্মান্তর করে মুসলমান হওয়ার প্রলোভন দেখায়, তাতে রাজি না হলে জোর পুর্বক লিংঙ্গ কর্তন করে সুন্নাতে খতনা বা মুসলমানি করানো হয় বলে অভিযোগ পাওয়া যায়।

ভিকটিম অভিজিৎ দাস’ বলেন ” আমাকে কাজ দেওয়ার কথা বলে গত ২রা অক্টোর তারিখ ঢাকা জিনজিরা নিয়ে বেশ কিছু দিন যাবত ধর্ম ত্যাগ/ ধর্মমান্তর করার কথা বলে বিভিন্ন প্রলোভন দেখায় কালাম হাওলাদার, আমি রাজি না হওয়ায় গত মাসে ১৬ তারিখ জোর পুর্বক চার – পাঁচজন আমাকে ধরে বেদে লিংঙ্গ কর্তন করে, এবং পরে ওষুধ পত্র এনে দেন, পরে সুযোগ পেয়ে গত ২২ শে অক্টোবর বাড়ি চলে আসি, কিন্তু বাড়িতে এসে লজ্জায় কাউকে প্রকাশ করতে পারিনি, গতকাল ৬ অক্টোবর আমার চাচি সুপারি পাড়তে গাছে উঠতে বললে আমি পারবোনা বলি, তখন গাছে উঠতে জোড়া জুড়ি করতে থাকলে এসব ঘটনা বলি”।

আজ ৭ নভেম্বর সকালে উপজেলার হারতা ইউনিয়ন পরিষদে ভিকটিম অভিজিৎ দাস ‘এর স্বজনরা হিন্দু সম্প্রদায়ের নেত্রীবৃন্দ ও স্থানীয় লোকজন এঘটনার তিব্র প্রতিবাদ জানায়।

এসময়ে হারতা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ডাঃ হরেন রায় ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি সুনীল কুমার বিশ্বাস উপস্থিত ছিলেন।

তারা জানান সংখ্যালঘু হিন্দু সম্প্রদায়ের উপর এমন অনাচারের বিরুদ্ধে তিব্র নিন্দা প্রকাশ করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানান।

এব্যপারে ভিকটিম অভিজিৎ দাস বাদী হয়ে উজিরপুর মডেল থানায় অভিযোগ দায়ের করে। অন্যদিকে অভিযুক্ত কালাম হাওলাদার ও তার ছেলে বাজার ব্যবসায়ি কামরুল হাওলাদার (২০) এমন উত্তেজনা মূলক অবস্থার টের পেয়ে পলাতক।

Source: বরিশাল টাইম ট্রেস