প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর উদ্যোগে এই মুসলিম দেশে হতে চলেছে প্রথম হিন্দু মন্দির

আবুধাবিতে এই বছর এপ্রিল মাসে প্রথম হিন্দু মন্দিরের শিলন্যাস করা হবে। একটি মিডিয়া রিপোর্টে এই তথ্য দেওয়া হয়। সংযুক্ত আরব আমিরশাহী এর রাজধানীতে মন্দির বানানোর যোজনা ২০১৫ সালে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর আরবের প্রথম সফরের সময় সেখানকার সরকার মঞ্জুরি দিয়েছিল।

গলফ নিউজের খবরে বলা হয় যে, বিশ্বব্যাপী হিন্দু ধার্মিক আর নাগরিক সংগঠন, বিএপিএস স্বামীনারায়ণ সংস্থা দ্বারা এই মন্দিরের নির্মাণ করা হচ্ছে। ওই রিপোর্টে বলা হয় যে, মন্দিরের শিলন্যাস করার অনুষ্ঠান আগামী ২০ এপ্রিল হবে। এর নেতৃত্বে থাকবে বিএপিএস স্বামীনারায়ণ সংস্থার বর্তমান গুরু আর সভাপতি মহন্ত স্বামী মহারাজ।

আধ্যাত্মিক গুরু ১৮ থেকে ২৯ এপ্রিল ইউএই তে থাকবেন। আবুধাবির ক্রাউন প্রিন্স শেখ মোহম্মদ বিন জায়দ আল নহয়ন এই মন্দির নির্মাণের জন্য ১৩.৫ একর জমি দান করেছেন। ইউএই সরকার সম পরিমাণে জমি মন্দিরকে পারকিং এর জন্য দিয়েছে।

আবুধাবিতে আনুমানিক ৩০ লক্ষ ভারতীয় থাকে। এটা সেখানকার জনসংখ্যার প্রায় ৩০ শতাংশ। সেখানকার অর্থব্যাবস্থাকে চালিয়ে রাখার জন্য ভারতীয়দের চরম সহযোগিতা আছে। এত বড় হিন্দু জনসংখ্যা থাকার পরেও আবুধাবিতে এখনো পর্যন্ত কোন হিন্দু মন্দির ছিলনা।

কিন্তু এর সাথে তুলনা করলে, দুবাইতে দুটি মন্দির আর একটি গুরুদ্বারা আছে। আর এর জন্য আবুধাবির স্থানীয় হিন্দুদের পুজা এবং বিয়ের জন্য দুবাইতে যেতে হত। আর এর জন্য আনুমানিক তিন ঘণ্টার সময় ও লাগত। কিন্তু ২০১৫ সালে নরেন্দ্র মোদীর আরব সফরের পর, ইউএই সরকার সেখানে একটি হিন্দু মন্দির বানানোর জন্য জমি দেওয়ার কথা ঘোষণা করে। আর সেই ঘোষণার পরেই, শুধু আবুধাবিতে না। ভারতেও খুশির হাওয়া বয়ে যায়।

এই মন্দির আবুধাবি থেকে ৩০ মিনিট দূরে হাইওয়েতে ‘আবু মুরেখা” নামক এক যায়গায় হচ্ছে। এই মন্দিরে শিব, কৃষ্ণ আর আয়াপ্পা ভগবানের মূর্তি থাকবে। আয়াপ্পা বিষ্ণু ভগবানের এক অবতার। আর কেরলে এই ভগবানের পুজা হয়। এই মন্দির নির্মাণ অভিযান চালাচ্ছেন আবু ধাবির এক বিখ্যাত ভারতীয় ব্যাবসায়ি বিআর শেট্টি। তিনি ইউএই ইক্সচেঞ্জ নামক একটি কোম্পানির এমডি।